ইতাআতে কুরআন || তিলাওয়াতের সাথে সাথে আমলও প্রয়োজন || সংকলক : অধ্যক্ষ মুহাম্মদ মিজানুর রহমান চৌধুরী

Blog (ব্লগ) রাহে কুরআন
ইতাআতে কুরআন
তিলাওয়াতের সাথে সাথে আমলও প্রয়োজন
সংকলক : অধ্যক্ষ মুহাম্মদ মিজানুর রহমান চৌধুরী 
নাযেম, মাদরাসা দাওয়াতুল হক, দেওনা, কাপাসিয়া, গাজীপুর
 
কুরআনে কারীম তিলাওয়াত ও হিফজ করা সম্পর্কিত যে সমস্ত ফযীলতের কথা হাদীসে বর্ণিত হয়েছে তা কি কেবল পড়া ও হিফজ করার দ্বারাই অর্জন হবে? কুরআনে কারীমে বর্ণিত বিধানাবলী আমলে বাস্তবায়িত করার প্রয়োজন নেই? হাদীসের প্রতি খেয়াল করলে একথা সুস্পষ্ট হয় যে, তিলাওয়াত বা হিফজ করার পাশাপাশি আমল করার সাথেই ফযীলত সম্পর্কিত। নতুবা একজন অমুসলিমও তিলাওয়াত ও হিফজ করে এ মর্যাদার অধিকারী হতে পারতো। আবু দাউদ শরীফে বর্ণিত এক হাদীসে রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন- ‘যে ব্যক্তি কুরআন পড়বে এবং তার উপর আমল করবে তার পিতা-মাতাকে কিয়ামতের দিন এমন একটি মুকুট পরানো হবে যার আলো সূর্যের আলো হতেও বেশি হবে, যদি সে সূর্য তোমাদের ঘরে হয়। সুতরাং যে ব্যক্তি নিজে কুরআনের উপর আমল করে তার সম্পর্কে তোমাদের কী ধারণা?’
তিরমিযী শরীফে বর্ণিত অন্য একটি হাদীসে রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন- ‘যে ব্যক্তি কুরআন শরীফ পড়বে এবং তা হিফজ করবে এবং তার হালালকৃতকে হালাল ও হারামকৃতকে হারাম জেনে চলবে, আল্লাহ তাকে বেহেশতে স্থান দিবেন এবং তার আত্মীয়বর্গের মধ্য হতে দশজন লোকের জন্য তার সুপারিশ গ্রহণ করবেন যাদের জন্য দোযখ সাব্যস্ত হয়ে ছিল।’
উপরোক্ত উভয় হাদীসে ফযীলত অর্জনের ক্ষেত্রে ‘আমল করা’ ও কুরআনের ‘হালালকে হালাল ও হারামকে হারাম জানা ও মেনে চলা’র শর্ত জুড়ে দেওয়া হয়েছে। এতে প্রতীয়মান হয় যে, কুরআনের ফযীলত অর্জনের জন্য আমল ও ইতাআত অতীব জরূরী। কিন্তু বাস্তবচিত্র ভিন্ন, কুরআনের সাথে দুরত্ব যেন দিন দিন বেড়েই চলছে। কুরআন মাজীদ পরিত্যাগকারীদের ভাগ্যে নবীজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম-এর শাফায়াত তো জুটবেই না, উপরন্তু-কিয়ামত দিবসে কঠিন মুসীবতের সময় নবীজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কুরআন পরিত্যাগকারীদের বিরুদ্ধে আল্লাহ তা’আলার দরবারে অভিযোগ করবেন,-
يٰا رَبِّ اِنَّ قَوْمِىْ اتَّخُذُوْا هٰذَا الْقُرْاٰنَ مَهْجُوْرًا
‘হে আমার রব! আমার কওম এই কুরআন পরিত্যাগ করেছিল।’-
(সূরা ফুরকান)
হাদীস শরীফে আছে, যে ব্যক্তি কুরআন শিক্ষা করে কিন্তু এরপর তাকে বেঁধে ঘরে ঝুলিয়ে রাখে, রীতিমত তিলাওয়াত করে না এবং তার বিধানাবলীও পালন করে না, কিয়ামতের দিন সে কুরআন গলায় ঝুলন্ত অবস্থায় কবর থেকে বের হবে। কুরআন শরীফ আল্লাহর দরবারে অভিযোগ দায়ের করবে.-‘হে আল্লাহ! আপনার এ বান্দা আমাকে পরিত্যাগ করেছিল, এখন আপনি তার ব্যাপারে ফয়সালা দিন।’- (তাফসীরে কুরতুবী)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *