তাওবার নামায

তাওবার নামায, সালাতুত তাওবা

আত্মশুদ্ধি ইবাদত ইসলাম প্রতিদিন জীবন কথা জীবনের গল্প সংবাদ

তাওবার নামায

শয়তানের প্ররোচনায় অথবা প্রবৃত্তির তাড়নায় কেউ যদি কোন গুনাহ করে ফেলে তাহলে সাথে সাথে ওযু করে দুই রাকা‘আত নামায আদায় করে কাকুতি—মিনতি করে আল্লাহ তা‘আলার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা ও তাওবা করা উচিত। এতে আল্লাহ তা‘আলা তার গুনাহ মাফ করে দিবেন এবং গুনাহের ক্ষতি থেকে তাকে হেফাযত করবেন। এই নামাযকেই তাওবার নামায বলা হয়। এই নামায প্রসঙ্গে হযরত আবু বকর সিদ্দীক রাযি. থেকে বর্ণিত আছে, রাসূলে কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেন, কোন মানুষ যখন কোন গুনাহ করে বসে এবং সাথে সাথে উযু করে দুই রাকা‘আত নামায আদায় করে, তখন আল্লাহ তা‘আলা তার গুনাহ ক্ষমা করে দেন। -তিরমিযী শরীফ

তাই কোন গুনাহ হয়ে গেলে তাওবার নামায ও ক্ষমা প্রার্থনা করা উচিত। অনেক বুযূর্গানে দ্বীন দৈনিকই দুই রাকা‘আত তাওবার নামায আদায় করার প্রতি উৎসাহ দিয়ে থাকেন। কারণ, দৈনন্দিন জীবনে আমাদের অনেক গুনাহই হয়ে থাকে। ছোট গুনাহও বারবার হতে থাকলে এর প্রভাব ও ক্ষতি কবীরা গুনাহের মতই হয়। তাই দৈনিকই এই নামায পড়ে নিজেকে পবিত্র ও কলুষমুক্ত করে নেওয়া বাঞ্চণীয়।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বরাবর প্রেরীত চি‌ঠির ব্যাখ্যা PDF ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন

আল্লাহর আইন শাশ্বত ও চিরন্তন

মহানবী জগতের আদর্শ মহামানব। ডক্টর মুহম্মদ শহীদুল্লাহ

মানব জাতির মুক্তি ও কামিয়াবী সুরাতুল আসরের ৪ মূলনীতির আলোকে ব্যবস্থা গ্রহণ করা আবশ্যক

Leave a Reply

Your email address will not be published.