বিধর্মীদের সঙ্গে বন্ধুত্ব

বিধর্মীদের সঙ্গে বন্ধুত্ব কুরআনের ভাষায়

ইসলাম প্রতিদিন প্রবন্ধ

বিধর্মীদের সঙ্গে বন্ধুত্ব কুরআনের ভাষায়

সেই পাম্পলেটে ওই সব আয়াতও উল্লেখ করা হয়েছে যেখানে কাফেরদের সঙ্গে শত্রুতা করা এবং তাদেরকে বন্ধু না বানানোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আয়াতগুলো হলো এই—

وَ اِذَا ضَرَبْتُمْ فِی الْاَرْضِ فَلَیْسَ عَلَیْكُمْ جُنَاحٌ اَنْ تَقْصُرُوْا مِنَ الصَّلٰوۃِ ٭ۖ اِنْ خِفْتُمْ اَنْ یَّفْتِنَكُمُ الَّذِیْنَ کَفَرُوْا ؕ اِنَّ الْکٰفِرِیْنَ کَانُوْا لَكُمْ عَدُوًّا مُّبِیْنًا

‘তোমরা যখন দেশ—বিদেশে সফর করবে তখন যদি তোমাদের আশঙ্কা হয়, কাফেররা তোমাদের জন্য ফেতনা সৃষ্টি করবে, তবে নামায সংক্ষিপ্ত করলে তোমাদের কোনো দোষ নেই। নিশ্চয়ই কাফেররা তোমাদের প্রকাশ্য শত্রু।’ [নিসা : ১০১]

یٰۤاَیُّهَا الَّذِیْنَ اٰمَنُوْا لَا تَتَّخِذُوا الْیَهُوْدَ وَالنَّصٰرٰۤی اَوْلِیَآءَ ۘؔ بَعْضُهُمْ اَوْلِیَآءُ بَعْضٍ ؕ وَمَنْ یَّتَوَلَّهُمْ مِّنْكُمْ فَاِنَّهٗ مِنْهُمْ ؕ اِنَّ اللهَ لَا یَهْدِی الْقَوْمَ الظّٰلِمِیْنَ

‘হে মুমিনগণ! তোমরা ইহুদি ও খৃস্টানদেরকে বন্ধুরূপে গ্রহণ করবে না, তারা পরস্পর পরস্পরের বন্ধু। তোমাদের মধ্যে কেউ তাদেরকে বন্ধুরূপে গ্রহণ করলে সে তাদের একজন হবে। নিশ্চয়ই আল্লাহ জালেম সম্প্রদায়কে সৎপথে পরিচালিত করেন না।’ [মায়েদা : ৫১]

یٰۤاَیُّهَا الَّذِیْنَ اٰمَنُوْا لَا تَتَّخِذُوا الَّذِیْنَ اتَّخَذُوْا دِیْنَكُمْ هُزُوًا وَّ لَعِبًا مِّنَ الَّذِیْنَ اُوْتُوا الْکِتٰبَ مِنْ قَبْلِكُمْ وَالْكُفَّارَ اَوْلِیَآءَ ۚ وَاتَّقُوا اللهَ اِنْ كُنْتُمْ مُّؤْمِنِیْنَ

‘হে মুমিনগণ! তোমাদের পূর্বে যাদেরকে কিতাব দেয়া হয়েছে তাদের মধ্যে যারা তোমাদের দীনকে হাসি—তামাশা ও ক্রীড়ার বস্তুরূপে গ্রহণ করে তাদেরকে ও কাফেরদেরকে তোমরা বন্ধুরূপে গ্রহণ করো না এবং যদি মুমিন হও তবে আল্লাহকে ভয় করো।’ [মায়েদা : ৫৭]

﴿۲۲﴾ یٰۤاَیُّهَا الَّذِیْنَ اٰمَنُوْا لَا تَتَّخِذُوْۤا اٰبَآءَكُمْ وَ اِخْوَانَكُمْ اَوْلِیَآءَ اِنِ اسْتَحَبُّوا الْكُفْرَ عَلَی الْاِیْمَانِ ؕ وَمَنْ یَّتَوَلَّهُمْ مِّنْكُمْ فَاُولٰٓئِکَ هُمُ الظّٰلِمُوْنَ

‘হে মুমিনগণ! তোমাদের পিতা ও ভাই যদি ঈমানের পরিবর্তে কুফরিকে শ্রেয় জ্ঞান করে, তবে তাদেরকে অন্তরঙ্গরূপে গ্রহণ করবে না। তোমাদের মধ্যে যারা তাদেরকে অন্তরঙ্গরূপে গ্রহণ করে, তারা জালেম।’ [তওবা : ২৩]

বিধর্মীদের সঙ্গে বন্ধুত্ব

কুরআন শরীফ শিক্ষা করা শ্রেষ্ঠতম রহমত

আদর্শ সেনানায়ক মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম। ড. এ. কে. এম. আইয়ুব আলী

Leave a Reply

Your email address will not be published.