রোগব্যাধি ও মহামারি থেকে মুক্তির দুআ

রোগব্যাধি, বালা-মুসীবত ও মহামারি থেকে হেফাজতের দুআ ও আমল

ইবাদত ইসলাম প্রতিদিন সংবাদ

রোগব্যাধি, বালা-মুসীবত ও মহামারি থেকে হেফাজতের জন্য কুরআন-সুন্নাহর আলোকে নিচের আমলগুলো প্রদান করেছেন খাদেমুস সুন্নাহ অধ্যক্ষ মুহাম্মদ মিজানুর রহমান চৌধুরী দা. বা.

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহীম

প্রথম আমল

বেশী বেশী সালাতুত তাওবা, সালাতুল হাজাত নামায আদায় করা। এবং বেশী বেশী দান-খায়রাত করতে থাকা।     

দ্বিতীয় আমল

(ক) নিচের দুআসমূহ সবসময় বেশী বেশী পড়তে থাকা

رَبَّنَاۤ اٰ تِنَا فِى الدُّنْيَا حَسَنَةً وَّفِى الْاٰخِرَةِ حَسَنَةً وَّقِنَا عَذَابَ النَّارِ

উচ্চারন : রাব্বানা আতিনা ফিদদুনইয়া হাসানাতাও ওয়া ফিল আখিরাতি হাসানাতাও ওয়া ক্বিনা আযাবান্নার।

(খ)  প্রত্যেক নামাযের পর ১১ বার

لَآ اِلٰهَ اِلّآ اَنْتَ سُبْحَانَكَ اِنِّىْ كُنْتُ مِنَ الظَّالِمِيْنَ

উচ্চারন : লা-ইলাহা ইল্লা আনতা সুবহানাকা ইন্নি কুনতু মিনাজ্জালিমীন।

(গ) প্রত্যেক নামাযের পর ১১ বার

اِنَّا لِلّٰهِ وَاِنَّاۤ اِلَيْهِ رَاجِعُوْنَ

উচ্চারন : ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজীউন।

() প্রত্যেক নামাযের পর ১১ বার

يَا حَيُّ يَا قَيُّوْمُ بِرَحْمَتِكَ اَسْتَغِيْثُ

উচ্চারন : ইয়া হাইয়ূ ইয়া কাইয়ূমু বিরাহমাতিকা আসতাগীস।

() প্রত্যেক নামাযের পর ১১ বার

لَا حَوْلَ وَلَا قُوَّةَ اِلَّا بِاللهِ الْعَلِيِّ الْعَظِيْمِ

উচ্চারন : লা হাওলা ওয়ালা কুওওয়াতা ইল্লা বিল্লাহিল আলিইইল আযীম।

() প্রত্যেক নামাযের পর বার

اَللّٰهُمَّ اِنِّىْ اَعُوْذُبِكَ مِنَ الْبَرَصِ وَالْجُنُوْنِ وَالْجُذَامِ وَمِنْ سَيِّئِ الْاَسْقَامِ

উচ্চারণ : আল্লাহুম্মা  ইন্নি আউযু বিকা মিনাল বারাসি ওয়াল জুনুনি ওয়াল জুযামি ওয়া মিন সায়্য়িইল আসক্বাম।

() বেশী বেশী পাঠ করা

اَللّٰهُمَّ ارْفَعْ عَنَّا الْبَلَاءَ وَالْوَبَاءَ

উচ্চারন : আল্লাহুম্মারফা‘ আন্নাল বালাআ ওয়াল ওয়াবাআ।

তৃতীয় আমল

বেশী বেশী ইস্তেগফার পাঠ করবেন। তা হলো এই

ا َللّٰهُمَّ  اغْفِرْلِىْ وَارْحَمْنِىْ

উচ্চারন : আল্লাহুম্মাগফিরলী ওয়ার হামনী

অর্থ :- হে আল্লাহ আমাকে মাফ করুন এবং দয়া করুন।

চতুর্থ আমল

বিসমিল্লাহ সহ সুরা ইখলাস, সুরা ফালাক ও সুরা নাস। ফজর ও মাগরিবের নামাযের পর তিন বার করে। যোহর, আসর ও এশার নামাযের পর একবার পড়া।

উপরোক্ত আমল করে শরীরে দম করবেন এবং হাতে দম করে সমস্ত শরীরে হাত বুলাইয়া দিবেন।

পঞ্চম আমল

প্রথমে ৩ বার দরূদ শরীফ পাঠ করে বিসমিল্লাহ সহ সুরা ফাতিহা ৩ বার, আয়াতুল কুরসী ৩ বার, সুরা ইখলাস ৩ বার, সুরা ফালাক ৩ বার ও সুরা নাস ৩ বার পাঠ করে আবার ৩ বার দরূদ শরীফ পাঠ করে হাতে দম করে সমস্ত শরীর মাসাহ করবেন এবং পানিতে দম করে পান করবেন।

ষষ্ট আমল

বাদ ফজর ও বাদ মাগরিব সূরা ইয়াসীন তিলাওয়াত করবেন।

সপ্তম আমল

সকাল সন্ধা তিন বার করে নিম্নের দুআসমুহ পাঠ করবেন। 

()

بِسْمِ اللهِ الَّذِىْ لَا يَضُّرُّ مَعَ  اسْمِهٖ شَيْءٌ فِى الْاَرْضِ وَلَا فِىْ السَّمَآءِ وَهُوَ السَّمِيْعُ الْعَلِيْمُ.

উচ্চারন : বিসমিল্লাহিল্লাযি লা ইয়াযুররু মাআসমিহি শাইউন ফিল আরযি ওয়ালা ফিস সামাই ওয়া হুওয়াস সামীউল আলীম।

অর্থ- আল্লাহর নামে শুরু করছি, যার নাম নিয়ে শুরু করলে আকাশ-মাটির কোনোকিছুই ক্ষতি করতে পারে না। আর তিনি সর্বশ্রোতা, সর্বজ্ঞ।

() বেশী বেশী পাঠ করা

اَعُوْذُ بِكَلِمَاتِ  التَّآمَّةِ  مِنْ شَرِّمَا خَلَقَ

 উচ্চারন : আউযু বি কালিমাতিল্লাহিত তাম্মাতি মিন শাররি মা খালাকা

 (গ) সকল প্রকার রোগব্যাধি থেকে মুক্তির আমল

بِسْمِ اللهِ عَلٰى دِيْنِيْ وَنَفْسِيْ وَوَلَدِيْ وَاَهْلِيْ وَمَالِيْ

 উচ্চারন : বিসমিল্লাহি আলা দ্বীনী ওয়া নাফসী ওয়া ওয়ালাদী ওয়া আহলী ওয়া মালী।

অর্থ- আমার দ্বীন, স্বীয় সত্তা, নিজের সন্তান, পরিবার ও সম্পদের ব্যাপারে আল্লাহর উপর ভরসা করলাম।

অষ্টম আমল

حَسْبُنَا اللهُ وَنِعْمَ الْوَكِيْلُ

৩৪১ বার পাঠ করা।

উচ্চারন : হাসবুনাল্লাহু ওয়া নি‘মাল ওয়াকীল।

নবম আমল

 সর্বপ্রকার রোগব্যাধি থেকে মুক্তির আমল يَاسَلَامُ

উচ্চারন : ইয়া সালামু, ১৪২ বার

প্রতিদিন সকাল বিকাল আগে পরে তিনবার দরূদ শরীফ। (অন্যান্য সময় যতটুকু সম্ভব)

দশম আমল

আগে পরে ১১ বার দরূদ শরীফ। অত:পর সুরা ফাতিহা ১১ বার সুরা নাস ও সুরা ফালাক এক বার করে পাঠ করে পানিতে দম করে পান করতে থাকবেন।

এগারতম আমল

বাদ এশা দুরূদে তুনাজ্জিনা ৭০ বার পাঠ করে দুআ করবেন। রোগব্যাধি ও মহামারির সময় এ আমলটি পরীক্ষিত।

اَللّٰهُمَّ صَلِّ عَلٰى سَيِّدِنَا وَمَوْلَانَا مُحَمَّدٍ وَّ عَلٰۤى اٰلِ سَيِّدِنَا وَمَوْلَانَا مُحَمَّدٍ صَلٰوةً تُنَجِّيْنَا بِهَا مِنْ جَمِيْعِ الْاَهْوَالِ وَالْاٰفَاتِ وَتَقْضِىْ لَنَا بِهَا جَمِيْعَ الْحَاجَاتِ وَتُطَهِّرُنَا بِهَا مِنْ جَمِيْعِ السَّيِّئَاتِ وَتَرْفَعُنَا بِهَا عِنْدَكَ اَعْلَى الدَّرَجَاتِ وَتُبَلِّغُنَا بِهَاۤ اَقْصَى الْغَايَاتِ مِنْ جَمِيْعِ الْخَيْرَاتِ فِى الْحَيٰوةِ وَبَعْدَ الْمَمَاتِ اِنَّكَ عَلٰى كُلِّ شَيْئٍ قَدِيْرٌ

উচ্চারন : আল্লাহুম্মা সাল্লি আলা সায়্যিদিনা ওয়া মাওলানা মুহাম্মাদিন ওয়া আলা আলি সায়্যিদিনা ওয়া মাওলানা মুহাম্মাদিন সালাতান তুনাজ্জিনা বিহা মিন জামিইল আহওয়ালি ওয়াল আ-ফা-তি ওয়া তাক্বযী লানা বিহা জামীআল হা-জাতি ওয়া তুত্বাহহিরুনা বিহা মিন জামীইস সায়্যিআতি ওয়া তারফাউনা বিহা ঈনদাকা আ‘লাদ দারাজাতি ওয়া তুবাল্লিগুনা বিহা আক্বসাল গা-য়া-তি মিন জামীইল খাইরাতি ফিল হায়াতি ওয়া বা‘দাল মামাতি, ইন্নাকা আলা কুল্লি শাইইন ক্বাদীর।

রোগব্যাধি সম্পর্কে আরো জনতে ভিজিট করুন আমাদের সাইটে।

কুরআনুল কারিমের কথা প্রবন্ধটি পড়তে ক্লিক করুন
আরো জানতে ভিজিট করুন আমাদের ওয়েব সাইট রাহে সুন্নাত ব্লগ

Leave a Reply

Your email address will not be published.