সাহাবায়ে কেরামের আনুগত্যের দৃষ্টান্ত || সংকলক : অধ্যক্ষ মুহাম্মদ মিজানুর রহমান চৌধুরী || রাহে সুন্নাত ব্লগ

Blog (ব্লগ) রাহে কুরআন সাহাবায়ে কেরাম
সাহাবায়ে কেরামের আনুগত্যের দৃষ্টান্ত
সংকলক : অধ্যক্ষ মুহাম্মদ মিজানুর রহমান চৌধুরী 
নাযেম, মাদরাসা দাওয়াতুল হক, দেওনা, কাপাসিয়া, গাজীপুর
 
 
কুরআন মাজীদে মদের ব্যাপারে একাধিক আয়াত অবতীর্ণ হয়েছে। সর্বশেষে অবতীর্ণ হয়েছে সুরা মায়েদার এ আয়াতগুলো-
يٰۤاَيُّهَا الَّذِيْنَ اٰمَنُوْا اِنَّمَا الْخَمْرُ وَالْمَيْسِرُ وَالْاَنْصَابُ وَالْاَزْلَامُ رِجْسٌ مِّنْ عَمَلِ الشَّيْطَانِ فَاجْتَنِبُوْهُ لَعَلَّكُمْ تُفْلِحُوْنَ اِنَّمَا يُرِيْدُ الشَّيْطَانُ اَنْ يُّوْقِعَ بَيْنَكُمُ الْعَدَاوَةَ وَالْبَغْضَاءَ فِىْ الْخَمْرِ وَالْمَيْسِرِ وَيَصُدَّكُمْ عَنْ ذِكْرِ اللهِ وَعَنِ الصَّلٰوةِ فَهَلْ اَنْتُمْ مُّنْتَهُوْنَ
হে ঈমানদারগণ! নিশ্চয় মদ, জুয়া, পূজার বস্তু ও জুয়ার তীর- (সবই) অপবিত্র, শয়তানের কাজ। অতএব এসব থেকে বেঁচে থাকো, যাতে তোমরা সফলকাম হও। শয়তান এ-ই চায় যে, মদ জুয়ার মাধ্যমে তোমাদের মধ্যে শত্রæতা ও বিদ্ধেষ সৃষ্টি করবে এবং তোমাদের আল্লাহর স্মরণ ও নামায থেকে বিরত রাখবে। অতএব তোমরা কি (তা থেকে) বিরত হবে?
-সুরা মায়িদা (৫) : ৯০-৯১
এ আয়াতে স্পষ্টভাবে মদ হারাম হওয়ার ঘোষণা করে মদ থেকে বিরত থাকার আদেশ করা হয়েছে। আরবে তখন মদের ব্যাপক প্রচলন ছিল। যুগ যুগ ধরে মদ তাদের সমাজ-সংস্কৃতির অংশে পরিণত হয়েছিল। কিন্তু মদ হারাম হওয়ার পর সাহাবায়ে কেরাম এ বিধানের প্রতি আনুগত্যের যে বিরল দৃষ্টান্ত দেখিয়েছেন, ইতিহাসে এর কোনো নজির পাওয়া যাবে না।
উপরের আয়াতগুলো শেষে বলা হয়েছে فَهَلْ اَنْتُمْ مُنْتَهُوْنَ (তোমরা কি মদপান থেকে বিরত হবে?) হযরত উমর রাযি. আয়াতটি শুনামাত্রই বলে উঠলেন, اِنْتَهَيْنَا، اِنْتَهَيْنَا ‘হ্যাঁ, হ্যাঁ, আমরা বিরত হলাম। আমরা বিরত হলাম।’ মুসনাদে আহমাদ, হাদীস ৩৭৮; সুনানে আবু দাউদ, হাদীস ৩৬৭০।
হযরত বুরাইদা রাযি. থেকে বর্ণিত, এক মজলিসে কিছু সাহাবী মদের পেয়ালায় ঠোঁট লাগিয়েছেন, ঠিক এমন সময় তাদের কাছে মদ হারাম হওয়ার সংবাদ পৌঁছল। সাথে সাথে তাঁরা মদের পেয়ালা দূরে নিক্ষেপ করলেন, আর فَهَلْ اَنْتُمْ مُنْتَهُوْنَ এর জবাবে اِنْتَهَيْنَا رَبَّنَا (অর্থাৎ আমরা বিরত হয়ে গেছি হে আমাদের প্রতিপালক।) -তাফসীরে তাবারী ১০/৫৭২; তাফসীরে ইবনে কাসীর ৫/৩৪৫।
হাদীস ও তাফসীর গ্রন্থসমূহে এ ধরনের আরো অসংখ্য ঘটনা বর্ণিত হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *