Overeating (3) অতিভোজন || ইবনে আবু যুবাইর || রাহে সুন্নাত ব্লগ || Rahe Sunnat Blog

Blog (ব্লগ) মুসলমানের হাসি

অতিভোজন (৩)

খলীফা সুলায়মান ইবনে আব্দুল মালিক হজ্ব আদায়কালে মক্কার ভীষন গরমে কষ্ট পাচ্ছিলেন। উমর ইবনে আব্দুল আযীয রহ. তাকে বললেন- আপনি যদি কয়েকদিনের জন্য তায়েফ আগমন করতেন তাহলে এখানকার স্বাস্থ্যকর আবহওয়া উপভোগ করে শান্তি পেতেন। সে মতে তিনি তায়েফ গমন করলেন। তিনি খেজুরের বিশাল বাগানে অবস্থানকালে ইবনে আবু যুবাইর খলীফার সাথে সাক্ষাত করে বললেন- হে আমীরুল মুমিনীন! অনুগ্রহপূর্বক আমার এখানে অবস্থান করুন। তিনি বললেন, সকল জায়গায় আমার বিশ্রামস্থল। এরপর তিনি বালুর ওপর শুয়ে পড়লেন। ইবনে আবু যুবায়ের বললেন, আমীরুল মুমিনীনের জন্য তোষক-গদি আনার ব্যবস্থা করি? খলীফা তখন বললেন- এ বালুই আমার কাছে বেশী প্রিয়। বালুর শীতলতা তার কাছে বেশ আরামদায়ক হলো। তিনি বালুর সাথে পেট মিশিয়ে বিশ্রাম নিলেন।
বর্ণনাকারী বলেন- খলীফার সম্মুখে পাঁচটি আনার (ডালিম) আনা হলো। তিনি পাঁচটি আনার খাওয়ার পর জিজ্ঞেস করলেন, তোমাদের কাছে এ ছাড়া আর আনার আছে কি? খাদেমগণ পর্যায়ক্রমে পাঁচটি করে আনার আনতে থাকলো, আর তিনি তা খেতে থাকলেন। এভাবে তিনি ৭০ টি আনার খেয়ে ফেললেন। এরপর তারা খলীফার সম্মুখে একটি ভূনাকৃত ছাগলছানা ও ছয়টি মুরগী নিয়ে এলো, তিনি সেগুলোও খেলেন। এরপর তায়েফের উন্নতমানের কিসমিস নিয়ে তার সমনে ছড়িয়ে দিল, তিনি তার বেশীরভাগই ভক্ষন করলেন। এরপর খলীফা কিছুক্ষন ঘুমালেন। জাগ্রত হওয়ার পর খাদেমগণ খানা হাজির কললো, মানুষে স্বাভাবিক যেভাবে খেয়ে থাকে তিনি সেভাবেই খানা খেলেন। সেখানে তিনি সেদিন এবং পরবর্তী দিনও অবস্থান করলেন। এরপর উমর ইবনে আব্দুল আযীয রহ. কে লক্ষ্য করে বললেন, আমার মনে হচ্ছে আমি মানুষের ক্ষতি সাধন করছি এবং ইবনে আবু যুবাইরকে বললেন- আমার সাথে মক্কায় চল। কিন্তু তিনি তা করলেন না। উপস্থিত লোকেরা ইবনে আবু যুবাইরকে বলল, আপনি তার সাথে গেলে ভালো হতো। তিনি বললেন- আমি  গেলে কি বলব? আমি কি এ কথা বলব যে, আপনাকে যা আপ্যায়ন করেছি তার মূল্য দেন?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *